12/11/2017

প্রতিদিন সকালে কাঁচা ছোলা খেলে কি উপকার হয় জেনে নিন। ছোলার কিছু গুরুত্বপূর্ণ গুনাবলী

প্রতিদিন সকালে কাঁচা ছোলা খেলে কি উপকার হয় জেনে নিন। ছোলার কিছু গুরুত্বপূর্ণ গুনাবলী
উচ্চমাত্রার প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার হচ্ছে ছোলা। ছোলা বিভিন্নভাবে খাওয়া যায় যেমন কাঁচা, সেদ্ধ বা তরকারি রান্না করে। কাচা ছোলা ভিজিয়ে খোসা ছাড়িয়ে যদি কাচাদের সঙ্গে খাওয়া যায় তবে সেটি আমিষ ও অ্যান্টিবায়োটিক এর কাজ করবে। আমিষ মানুষকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান বানায় আর অ্যান্টিবায়োটিক হচ্ছে যেকোনো রোগের বিরুদ্ধে নিরাময়ক।

কাঁচা ছোলার গুণ সম্পর্কে আমরা কমবেশি সবাই জানি। প্রতি 100 গ্রাম ছোলা কি কি কি উপাদান রয়েছে তা এখন আমরা জেনে নিবো প্রায় 18 গ্রাম, carbohydrates প্রায় 64 গ্রাম, fat মাত্র পাঁচ গ্রাম, 200 মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, বিদ্যালয়ে প্রায় 192 microgram শেষ হতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি এবং ভিটামিন বি2 আছে। এছাড়াও কাচা ছোলায় আর যা যা রয়েছে তা হচ্ছে ভিটামিন, খনিজ লবণ, ম্যাগনেসিয়াম ও ফসফরাস।

ছোলার কিছু গুরুত্বপূর্ণ গুনাগুন

ডাল হিসেবে ছোলা: 

ছোলা অত্যন্ত পুষ্টিকর একটি ডাল। ছোলা হচ্ছে মলিবডেনাম এবং মেঙোনিজের চমৎকার একটি উৎস। 16 তে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফলেট এবং খাদ্যআঁশ সাথে আছে আনিস tryptophan, copper, ফসফরাস এবং iron.

হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে:

অস্ট্রেলিয়া গবেষণায় দেখিয়েছেন যে খাবারে sola যুক্ত করলে খারাপ কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমেছে। 1623 সাধারনত দ্রবণীয় এবং অগ্রহণীয় উভয় ধরনের খাদ্যই এসেছে যার ফলে হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে ঝুঁকি থেকে মুক্তি পায়। আজ পড়েছে ভিটামিন সি এবং ভিটামিন বি six হূদযন্ত্রের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে। তাই নিয়মিত কলা খেলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যায়। এর ধানের রয়েছে প্রচুর আঁশ যা রক্তের কোলেস্টরলের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে। এক পরীক্ষায় দেখা গেছে যারা নিয়মিত 4609 মিলিগ্রাম শলাকায় হৃদরোগ থেকে তাদের মৃত্যুর ঝুঁকি প্রায় 49 শতাংশ কমে যায়।

রক্তচাপ কমাতে:


আমেরিকান মেডিকেল এসোসিয়েশন জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখানো হয় যে যেসকল অল্প বয়সী নারীরা বেশি পরিমাণে ফলিক এসিড যুক্ত খাবার খান তাদের hypertension এর প্রবণতা কমে যায়। যদি আপনি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে চান সে ক্ষেত্রে বেশি বেশি ছোলা খেতে পারেন কারণ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে। এছাড়াও বয়ঃসন্ধি পরবর্তীকালে মেয়েদের হার্ট ভালো রাখতে ছোলা বেশ জুড়ালো গুরুত্ব রাখে।

রক্ত চলাচল বৃদ্ধি: 

অপর এক গবেষণায় দেখা গেছে যে প্রতিদিন 1 থেকে 2 পানশালা সেবন করে বাঘায় তাদের পায়ের গোড়ালিতে রক্ত চলাচল বেড়ে যায় সোনায় সঙ্গে চীন এবং মটর কেউ যুক্ত করা হয়েছিল।

ক্যান্সার রোধ করতে:

কোরিয়ান গবেষকরা তাঁদের গবেষণায় প্রমাণ করেছেন যে বেশি পরিমাণে ফলিক এসিড খাবারের সাথে গ্রহণ এর মাধ্যমে ক্যান্সার এবং জটিল ক্যান্সারের ঝুঁকি থেকে নিজেকে খুব সহজেই মুক্তি পেতে পারেন। এছাড়াও folic acid রক্তের অ্যালার্জির পরিমাণ কমিয়ে দিয়ে অ্যাজমার প্রকোপ কমাতে পারে তাই নিয়মিত কলা খান এবং সুস্থ থাকুন।

ডায়বেটিসের প্রতিষেধক:

100 গ্রাম ছোলায় আছে প্রায় 70 গ্রাম আমিষ বা প্রোটিন, আরো আছে 64 গ্রাম শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট সেই সাথে রয়েছে পাঁচ গ্রাম ফ্যাট বা তেল আরো আছে 64 গ্রাম শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট সেই সাথে রয়েছে পাঁচ গ্রাম ফ্যাট বা তেল। ছোলার শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট গ্লাইসেমিক ইনডেক্স কম। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ছোলার শর্করা বেশ উপকারী। সেইসাথে প্রতি 100 গ্রাম ছোলায় আরও রয়েছে প্রায় 200 মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, 10 মিলিগ্রাম লৌহ এবং 190 microgram ভিটামিন এ। এছাড়াও আছে ভিটামিন b1 b2 ফসফরাস ও ম্যাগনেসিয়াম যা শরীরের উপকারে আসে।

রক্তের চর্বি কমায়: 

সোলাই যেহেতু ফ্যাটের বেশির ভাগই পলিআনস্যাচুরেটেড। তাই এই ফ্যান শরীরের জন্য মোটেই ক্ষতিকর নয় বরং রক্তের চর্বি আরো বেশ কমে।

অস্থির ভাব দূর করে:

ছোলার শর্করা গ্লাইসেমিক ইনডেক্স এর পরিমাণ কম থাকায় শরীরে প্রবেশ করার পর অস্থির ভাব দূর করে খুব সহজেই।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে:

কাচা ছোলা ভিজিয়ে কাঁচা আদার সঙ্গে মিশিয়ে খেলে শরীরে আমিষ ও অ্যান্টিবায়োটিক এর চাহিদা পূরণ করে দেয় মানুষকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান হওয়ার জন্য নিয়মিত ছোলা খাওয়া প্রয়োজন। আমিষ মানুষকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান বানায় এবং অ্যান্টিবায়োটিক যেকোনো অসুখের জন্য প্রতিরোধ গড়ে তোলে।

জ্বালাপোড়া দূর করে:

সালফার নাম ও খাদ্য উপাদান থেকে এই জেলাতে তাই সালফার মাথা গরম হয়ে যাওয়া এবং হাত পায়ের তলায় জ্বালা পোরা কমায়।

মেরুদন্ডের ব্যথা দূর করে: 

যেহেতু ছোলাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন বি তাই এটি মেরুদন্ডের ব্যথা এবং স্নায়ুর দুর্বলতা দূর করতে সাহায্য করে।

No comments

Post a Comment